How to death from smartphone in bengali | স্মার্ট ফোন থেকে মৃত্যু এটা কি সম্ভব ? - InteresT EducatioN

Death from smartphones ? Is it possible ? www.interesteducation.in
www.interesteducation.in


স্মার্ট ফোন কিভাবে আমাদের মৃত্যু ডেকে আনতে পারে ? স্মার্ট ফোন থেকে মৃত্যু এটা কি সম্ভব ?



এখন বর্তমানে স্মার্টফোন আমাদের খুবই কাজে আসে আমাদের ঘুম থেকে ওঠা থেকে শুরু করে রাতে শুতে যাওয়া পর্যন্ত ফোন আমাদের কাজে লাগে এক কথায় বলতে গেলে স্মার্টফোন আমাদের বেস্ট ফ্রেন্ড । কিন্তু যদি সেই বেস্ট ফ্রেন্ড আমাদের সমস্যা সৃষ্টি করে ? হ্যাঁ সমস্যাই বটে আমরা সকলেই জানি  যে কোন জিনিসের ভালো দিকও আছে যেমন তেমন খারাপ দিকও থাকে । ঠিক তেমনভাবে স্মার্টফোন যতটা আমাদের কাজে লাগে ততটাই আমাদের ক্ষতি করে এগুলো আমরা অনেকেই জানি । কিন্তু তবুও স্মার্টফোন থেকে মৃত্যু এটি কেমন ভাবে সম্ভব ? সম্ভব ।

যদি আপনি এসব নতুন স্মার্টফোন বা গেজেট গুলোর সাথে দুর্ব্যবহার করেন তবে মৃত্যু তো অবশ্যই আছে ।
ঠিক যেমন, “ রাজস্থানের চিতোরগড় নামে এক অঞ্চলে কিশোর সিং নামে একজন ভদ্রলোক যার বয়স ছিল 60 বছর, তিনি রাতে শুতে যাওয়ার আগে শার্ট এর সামনের বুক পকেটে মোবাইল রেখেছিলেন, তিনি যখন রাত দুটোর সময় হোটেল তখন দেখেন তার বুক পকেটের মোবাইল থেকে ধোঁয়া বের হচ্ছে, ফোন ফেটে ছিল এবং তার জামা কাপড়ে আগুন লেগে গিয়েছিল তার পরে তাকে হসপিটালে নিয়ে যাওয়া হয় এবং ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন ।”
এরকম ঘটনা থেকে  কিভাবে আপনি সাবধানে থাকবেন ? মোবাইল ফাটা থেকে কিভাবে সাবধানে থাকবেন চলুন দেখে নেওয়া যাক।


মোবাইলের উপর প্রেসার :-


Death from smartphones ? Is it possible ? www.interesteducation.in
www.interesteducation.in



১.  প্রথমে সবথেকে বড় জিনিস মোবাইলের সাথে  ঘুমাতে যাওয়া ‌। এমন অনেক লোক আছে যারা মোবাইল নিয়ে ঘুমাতে যায় কেউ প্যান্টের পকেট এ কেউ বা চ্যাটিং করতে করতে হাতে মোবাইল রেখে ঘুমিয়ে পরে কেউবা প্যান্টের পকেটে রেখে ফোন রেখে ঘুমিয়ে পড়ে আপনাকে মোবাইল নিয়ে ঘুমোতে যাওয়া বন্ধ করতে হবে ।

২. আবার, এমন অনেক লোক আছে যারা মোবাইলকে বালিশের তলায় রেখে ঘুমায় সবথেকে বড় খারাপ জিনিস হলো  মোবাইলকে বালিশের তলায় রাখা । এতে কি হয় ফোনের ওপর প্রেসার পরে তো আমাদের কি করা উচিত ফোনের উপর প্রেসার দেওয়া উচিত নয় ।


৩. বেশিরভাগ লোকই মোবাইলের ব্যাক কভার বা ফ্লিপ কভার ইউজ করে তাও আবার প্লাস্টিক  বা রাবার জাতীয়, এতে কি হয় এতে ফোনে প্রেসার পড়ে যার ফলে ফোন উত্তর দিক গরম হয়ে যায় এবং এর ফলে ফোন ব্লাস্ট হতে পারে ।

চার্জে দিয়ে মোবাইল ইউস :-


Death from smartphones ? Is it possible ? www.interesteducation.in
www.interesteducation.in




১. এমন অনেক লোক রয়েছে যারা চার্জে দিয়ে মোবাইলে গেম খেলে , কেউ আবার ভিডিও দেখে কেউ বা চ্যাটিং করে ।  এটি একটি ভয়ানক জিনিস এমন অনেক ঘটনা ইন্টারনেটে বা টিভিতে আপনি দেখতে পাবেন যে মোবাইল মোবাইল চার্জে দিয়ে ঘাটতে ঘাটতে মোবাইল ব্লাস্ট করেছে অনেক মানুষের ক্ষতি হয়েছে এরকম জিনিস করা থেকে আপনাকে সাবধানে থাকা উচিত ।
চার্জে দিয়ে মোবাইল ঘাঁটা একটি খারাপ জিনিস কি হয় এতে মোবাইলের ব্যাটারির উপর প্রেসার পরে ।

সস্তা বা চায়না মোবাইল ইউজ :-



www.interesteducation.in


১. সস্তা অথবা চায়না মোবাইল ইউজ করা ও ক্ষতিকর হয়ে দাঁড়াতে পারে কারণ এসব কম দামি ফোন খুব তাড়াতাড়ি গরম হয়ে ওঠে এবং আপনি হয়তো দেখেছেন যে সব কম দামি ফোনে তুই খুব তাড়াতাড়ি চার্জ ফুরিয়ে যায় এবং মাঝে মাঝে দেখা যায় এগুলোর ব্যাটারি ও ফুলে-ফেঁপে ওঠে সাবধানে থাকতে হলে আপনাকে সস্তা ফোন ইউসিং  বন্ধ করতে হবে।

২. এমন অনেকেই রয়েছেন যারা সেকেন্ড হ্যান্ড মোবাইল ইউজ করেন । তাদেরকে বলে রাখি এরকম সেকেন্ড হ্যান্ড মোবাইল থেকেও বিপদ বাড়তে পারে ‌। আপনাকে যদি সেখানে টিপুনি ইউজ করতে হয় তাহলে এমন কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে ইন্টারনেটে যেখান থেকে আপনি খুব কম পয়সায় মোবাইল কিনতে পারবেন এগুলো ও সেকেন্ড হ্যান্ড তবে এগুলো ডাইরেক্ট কোম্পানি থেকে পাবেন আপনি। তাহলে আপনাকে সেকেন্ড হ্যান্ড ফোন ইউজ করা বন্ধ করতে হবে।

৩. এমন অনেক চায়না কোম্পানির মোবাইল রয়েছে যেগুলোর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে রেডিয়েশনের মাত্রা থাকে কিন্তু রেডিয়েশন যে আমাদের শরীরের ক্ষতি করে এটা নিয়ে অনেক মতবাদ রয়েছে । সুতরাং আমাদের মত পথ নিয়ে কোন কাজ নেই আমাদের সাবধানে থাকার নেই কাজ তাই আপনাকে চায়না কোম্পানির ফোন গুলি কিনা বন্ধ করতে হবে এতে আপনি মোবাইল পাতা থেকে সাবধানে থাকতে পারবেন।


অসাবধানে চার্জ করা :-


www.interesteducation.in


১. চেষ্টা করুন মোবাইলে সব সময় নিজস্ব চার্জার ইউজ করার, বাজারে এমন অনেক চার্জার রয়েছে যা আপনার মোবাইলের ভোল্ট এর সাথে আপনার চার্জার ভোল্ট ম্যাচ করতে না ও পারে।

২.  চেষ্টা করুন সারা রাত চার্জে না দেওয়া। চার্জ করুন কিন্তু ব্রান্ডের চার্জার ইউজ করুন, কারণ ব্রান্ডেড কম্পানির মোবাইল বা চার্জার এ থাকে এক ধরনের সার্কিট যা ওভার চার্জীং প্রতিরোধ করে। কিন্তু যদি ব্রান্ডিং ইউজ না করেন তাহলে ওভার চার্জীং হয়ে ব্যাটারি ফেটে যেতে পারে।
যদি আপনি সন্দেহ করেন যে আপনার মোবাইলটি ব্রান্ডেড নয়, তাহলে সারা রাত চার্জে দেবেন না, এতে আপনার মোবাইলটি গরম হয়ে যেতে পারে তবে যেসব ফোন ফেটে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে সেগুলো প্রথম গরম হয়ে ওঠে। এমন সব জিনিসের থেকে সাবধানে থাকুন।

Post a Comment

Previous Post Next Post