কিভাবে ইন্টারনেটে প্রতারণার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেবেন ? What is cyber crime - InteresT EducatioN

কিভাবে ইন্টারনেটে প্রতারণার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেবেন ?


কিভাবে অনলাইনে সুরক্ষিত থাকবেন




বিশ্বজুড়ে এখন টেকনোলজি উন্নত হচ্ছে, উন্নত হচ্ছে মানুষের জীবনযাত্রা। এখন আমরা সকলেই জানি যে টেকনোলজি ছাড়া আমরা চলতে পারি না, টেকনোলজি চলে মূলত অনলাইন বা ইন্টারনেটের ব্যবহার করে।
আমরা সকলেই জানি যে আগে প্রচুর পরিমাণে চোর-ডাকাতের উপদ্রব ছিল, কিন্তু বর্তমানে সেই চোর ডাকাতের উপদ্রব অনেক কমে গেছে নেই বললেই চলে, কিন্তু সেই চোর-ডাকাত এর পরিবর্তে এসে গেছে অনলাইন জগতের চোর যাদেরকে আমরা হ্যাকার বলে জানি।
আর এই হ্যাকার মানেই যে খারাপ, চোর এমন কিন্তু নয়। দু ধরনের হ্যাকার থাকে এক হলো হোয়াইট হ্যাট হ্যাকার, আর এক হলো ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকার।
আপনি হয়তো ভাবছেন যে এই হোয়াইট হ্যাট আর ব্ল্যাক হ্যাট এর মধ্যে পার্থক্যটা কোথায় ?
আপনি একটু লক্ষ্য করলেই বুঝতে পারবেন যে পার্থক্যটা রং-এর মধ্যেই বলে দেওয়া আছে, মূলত হোয়াইট হ্যাট হ্যাকাররা হল ইথিক্যাল হ্যাকার যাদেরকে ভালো হ্যাকার বলা হয়ে থাকে, এদের কাজ হলো সরকারের পক্ষে কাজ করা বা কোন বড় বড় ওয়েবসাইট বা কোন বড় অর্গানাইজেশনের ইকোনমিক দিকের অনলাইনগত দুর্বল জায়গা গুলো খুজে বের করা এবং সেই অর্গানাইজেশন কে জানানো।
আর এদিকে ব্ল্যাক হল খারাপের প্রতীক মানে ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকাররা হল যারা অসামাজিক, অনৈতিক কার্যকলাপ করে থাকে অনলাইন দুনিয়াতে। এরা মূলত অনলাইনে মানুষকে প্রতারিত করে থাকে।
আপনাদের মধ্যে অনেকেই হয়তো জানেন যে সেনাবাহিনী দের মধ্যে নতুন এক সেনাবাহিনী যুক্ত হয়েছে যেটি হল অনলাইন সুরক্ষা সেনাবাহিনী যাকে ইংরেজিতে বলা হয় সাইবার সিকিউরিটি ফোর্স। আর এই সাইবার সিকিউরিটি ফোর্স গঠিত হয় মূলত হোয়াইট হ্যাট হ্যাকার দের কে নিয়ে, এদের কাজ হলো অনলাইনে ঘটা সমস্ত প্রতারণা, ওয়েবসাইট হ্যাকিং, অনলাইন ফ্রড এসবের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া আপনি এই সাইবার সিকিউরিটি ফোর্স কে অনলাইন দুনিয়ার আর্মি ভাবতে পারেন।
ভবিষ্যতে এখন সাইবার ক্রাইম খুবই বৃদ্ধি পেয়েছে, আপনারা যে কেউ এখন এই সাইবার ক্রাইমের ফাঁদে পড়তে পারেন,
জেনে নিন কি কিভাবে আপনার এই সাইবার ক্রাইম এর ফাঁদে পড়ে কিভাবে রক্ষা পাবেন এবং আপনার সাথে এরকম কোন ঘটনা ঘটে তাই জন্য কিভাবে সুরক্ষিত থাকবেন ?

সাইবার ক্রাইম কি ? কিভাবে আপনি অনলাইনে প্রতারণার হাত থেকে সুরক্ষিত থাকতে পারবেন ?




আমি আপনাদেরকে বলেছি যে ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকার এবং হোয়াইট হ্যাট হ্যাকার কি কারা ? এ সমস্ত সাইবার ক্রাইম করে কারা ? সাইবার ক্রাইম এমন এক জঘন্য অপরাধ যা কোনও কম্পিউটারের মাধ্যমে (হ্যাকিং, ফিশিং, স্প্যামিং) বা কোনও অপরাধ করার জন্য ব্যবহার করা হয় (শিশু পর্নোগ্রাফি, শিশু কিডন্যাপিং এর মত অপরাধ) এছাড়াও এরা আপনার ব্যক্তিগত ছবি নিয়ে বা ব্যক্তিগত কোন জিনিস নিয়ে আপনাকে ব্ল্যাকমেল করতে পারে। সাইবার ক্রিমিনালরা ব্যক্তিগত তথ্য, ব্যবসা বাণিজ্যের গোপনীয়তা অ্যাক্সেস বা শোষণমূলক বা দূষিত উদ্দেশ্যে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে কম্পিউটার প্রযুক্তি ব্যবহার করতে পারে। এ সমস্ত ব্ল্যাক হ্যাট হ্যাকাররা সমস্ত নথিপত্র বা ডকুমেন্টস অনলাইনের মাধ্যমে বের করে নিতে পারে এবং আপনি জানতেও পারবেন না এই অবৈধ ক্রিয়াকলাপ সম্পাদনকারী অপরাধীদিরা প্রায়শই এরকম সাইবার ক্রাইম করে থাকে ।





কিভাবে আপনি অনলাইনে প্রতারণার হাত থেকে সুরক্ষিত থাকতে পারবেন ?



অনলাইন প্রতারণা এর হাত থেকে বাঁচার জন্য সর্ব প্রথম পদক্ষেপ হলো নিজেকে অনলাইনে সঠিকভাবে পরিচালিত করা, নিচে দেওয়া হল কি কিভাবে আপনি অনলাইনে নিজেকে সঠিকভাবে পরিচালিত করতে পারবেন।

১. নিজস্ব ব্যক্তিগত বা ঘনিষ্ঠ মূলক কোনো ছবি অনলাইনে আপলোড করবেন না।

২. নিজের একাধিক ব্যাংক একাউন্ট অথবা এটিএম কার্ড অনলাইন এর সাথে যুক্ত করবেন না।

৩. নিজের ডেবিট কার্ড ও ক্রেডিট কার্ড নম্বর কাউকে জানাবেন না এবং অনলাইনে তো একদমই নয়।

৪. মোবাইলে একাধিক বার মিসডকল আসলে বিরক্ত হয়ে মোবাইল সুইচ অফ করবেন না।

৫. ব্যাংক এর সাথে ভেরিফাইড মোবাইল নম্বর অনলাইনে গোপন রাখুন।

৬. কাস্টমার কেয়ার অথবা আপনার নেটওয়ার্ক অপারেটররা অথবা কোন ব্যাংক থেকে যদি আপনার কাছে কোন ফোন আসে এবং যদি তারা কোন সন্দেহমূলক কিছু করতে বলে তাহলে একদমই করবেন না, কারণ অনেক ক্ষেত্রেই প্রতারকরা আপনাকে ফোন করতে পারে।



যদি আপনার সাথেও এরকম কিছু ঘটে থাকে বা আপনার সাথে এরকম কিছু ঘটতে পারে তাহলে আপনি অবশ্যই যোগাযোগ করতে পারেন আপনার রাজ্যের বা আপনার আপনার জেলার সাইবার সিকিউরিটি ফোর্সে।

কিভাবে আপনি সাইবার সিকিউরিটি ফোর্সে যোগাযোগ করবেন ও সাইবার ক্রাইম কি কিভাবে ঘটে থাকে এ নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করব। যদি আপনার সাথে এমন কিছু ঘটে থাকে তাহলে নিচে কমেন্ট করে আমাকে জানাতে পারেন।

1 Comments

  1. আপনারা যদি অনলাইনে এরকম কোন সমস্যার মুখে পড়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে আমাকে জানাতে পারেন

    ReplyDelete

Post a Comment

Previous Post Next Post