How to safe smartphone from hang explain in bengali | smartphone hang solutions in bengali - InteresT EducatioN

স্মার্টফোনে হ্যাং থেকে কীভাবে মুক্ত হবেন ? ও স্মার্টফোনের সমষ্যগুলি কীভাবে ঠিক করবেন ?




বর্তমানে স্মার্টফোন ও ইন্টারনেট ছাড়া অনেক কিছুই অ-সম্পুর্ন। একটি স্মার্টফোন আমাদের অনেক জিনিসের চাহিদা পূরণ করে, একাধিক জিনিস আমাদের আলাদা করে বহন করতে হয় না। কিন্তু মাঝে মাঝে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কিছু সমষ্যায় পড়তে হয় , এই যেমন হ্যাং, সফ্টওয়্যার প্রবলেম, অটোমেটিক মেমোরী কার্ড ভর্তি, মোবাইল হার্ডওয়্যার প্রবলেম ইত্যাদি ইত্যাদি।

আজ আপনাদের জানাব কিভাবে আপনি এই সমষ্যগুলি থেকে মুক্ত হবেন বা ঠিক করবেন ।


১. এপ্লিকেশন আপডেটেড রাখুন :- 



এপ্লিকেশন ডেভলপাররা প্রতিনিয়ত তাদের এপ্লিকেশনগুলি আপডেটেড করে চলেছে, এবং যদি আপনি সেই সমস্ত এপ্লিকেশনগুলি সময় মত আপডেট না রাখেন তাহলে আপনার এপ্লিকেশনটির জন্য আপনার ডিভাইসটি স্লো হয়ে যেতে থাকে, এছাড়াও কখনো কখনো এপ্লিকেশনগুলি কাজ করা ও বন্ধ করে দেয়। তাই সব সময় চেষ্টা করুন ডিভাইসের এপ্লিকেশনগুলি নিয়মিত আপডেটেড রাখতে।


২. ফোন মেমোরি খালি রাখুন :- 



স্মার্টফোনের ডিভাইসগুলোর ফোন মেমোরি বেশি থাকে বলে অনেকে ফোন মেমোরিতে যাবতীয় এপ্লিকেশন ইন্সটল করেন, এবং শুধু তাই নয় অনেকে আবার দরকারি বেশি সাইজ এর ফাইলগুলি ও ফোন মেমোরিতে ব্যবহার করেন। যদি আপনি ও করছেন তাহলে আপনাকে জানিয়ে রাখি ফোন মেমোরিতে ডিভাইসটির সিস্টেম এর জন্য তৈরি করা । আপনি যত বেশি জায়গা বা স্টরেজ খালি রাখতে পারবেন আপনার ডিভাইসটি ঠিক ততটাই ভালো থাকবে। তাই এপ্লিকেশন গুলি মেমোরী কার্ডে ইন্সটল করুন।


৩. নীজস্ব ডাউনলোড এপ্লিকেশন ব্যবহার করুন :-



আপনি যদি অন্য কোন ডিভাইস থেকে এপ্লিকেশন নিয়ে ইন্সটল করেন তাহলে আপনি ভূল করেন। কারন দুটি ডিভাইসের কেপাসিটি সম্পুর্ন আলাদা থাকে, তাই নীজের ডাউনলোড করা এপ্লিকেশন ব্যবহার করুন ও হ্যাং এর হাত থেকে বাঁচুন।

৪. অ-দরকারী এপ্লিকেশনগুলি মুছুন :- 



অনেক সময় আমরা এমন কিছু এপ্লিকেশন ইন্সটল করে রাখি যেগুলো আমাদের কোনো কাজে আসে না। সেই এপ্লিকেশনগুলি  ডিভাইসের অনেকখানি জায়গা নিয়ে রাখে যার জন্য ডিভাইসটি মাঝে মাঝে হ্যাং করে। তাই এই সমস্ত অ-দরকারী এপ্লিকেশনগুলি মুছে ফেলুন।


৫. ফ্যাক্টরি রিসেট ব্যবহার করুন :- 




ফ্যাক্টরি ডেটা রিসেট হল একটি সেটিংস যেটার ব্যবহারের পরে ডিভাইসটি আবার আগের অবস্থায় ফিরে আসে, অর্থাত আপনার ডিভাইসের সমস্ত কিছু মুছে গিয়ে আগের অবস্থায় ফিরে আসে ও নতূন এর মতো হয়ে যায়। তাই যখনই আপনার ডিভাইসটি ভাইরাস এটাক করবে বা হ্যাং করবে অথবা কাজ করবে না তখন আপনি ফ্যাক্টরি রিসেট সেটিংসটি ব্যবহার করতে পারেন।

৬. মোবাইলে কম ইন্টারনেট ইউজ করুন :-



বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহারের ফলে হ্যাং হয়ে থাকে। নীজস্ব মোবাইল ডেটা ব্যবহার করলে ডিভাইসটি বেশি গরম হয়ে যায় যেখানে দেখা গেছে ওয়াইফাই কানেক্ট করে ডেটা ব্যবহার করলে ডিভাইস সেই তুলনায় অনেক কম গরম হয়। আপনার ডিভাইসটি যদি হ্যাং করে তাহলে চেষ্টা করুন কম ইন্টারনেট ইউজ করতে।


৭. এন্টি ভাইরাস ইন্সটল করুন :-



আপনার ডিভাইসটি ভাইরাস এটাক করছে? কিম্বা হ্যাং করছে ? তাহলে আপনার মন ও আত্মার বিশ্বাসের জন্য আপনি এন্টি ভাইরাস ইন্সটল করে নিতে পারেন। তবে যদি আমার রেকমেন্ড এর কথা বলেন তাহলে বলব এন্টি ভাইরাস এন্ড্রোয়েড মোবাইলে কোনো কাজে আসে না এতে শুধু শুধু আপনার ডিভাইসটিতে জায়গা নিয়ে থাকে।


৮. গুগল অনুমোদিত এপ্লিকেশন ব্যবহার করুন :-



আমরা অনেকেই জানি যে গুগল অনুমোদিত যে কোন এপ্লিকেশন, সফ্টওয়্যার, এন্টি ভাইরাস থেকে শুরু করে সমস্ত কিছুর কোয়ালিটি। তাই আপনি সবসময় যাবতীয় এপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন প্লে স্টোর থেকে। তাতে আপনার ডিভাইসটি ভাইরাস এটাক বা হ্যাকিং থেকে মুক্ত থাকবেন।


৯. এপ্লিকেশন গুলি ক্লিয়ার ক্যাচ করুন :-




আমরা অনেকেই ক্লিয়ার ক্যাচ এর সাথে পরিচিত নয়। এটি স্মার্টফোনের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ একটি সেটিংস। আমরা যখন কোন এপ্লিকেশন ইন্সটল করি তার কিছুদিন পরই ওই এপ্লিকেশনটি কোনো না কোনো সমস্যা দেখা দেয়, কারণটি হলো ওই এপ্লিকেশনটি আমাদের ডিভাইসে ইন্সটল করার পর থেকে অতিরিক্ত জায়গা নিতে শুরু করে। আর ওই অতিরিক্ত জায়গাগুলো খালি করার জন্য ক্লিয়ার ক্যাচ সেটিংসটি ব্যবহার করে থাকি।


১০. স্মার্টফোন কভার মুক্ত রাখুন :- 



স্মার্টফোনে কভার ব্যবহার করেন অনেকে, আপনি কি জানেন আপনি আপনার ডিভাইসটি পড়ে যাওয়ার হাত থেকে বাঁচতে গিয়ে ভেতর থেকে খারাপ করে ফেলছেন। আপনি যখন আপনার ডিভাইসটি ব্যবহার করেন তখন সেই ডিভাইস থেকে রেডিয়েশন, অদৃশ্য কার্বন, গরম হওয়া ইত্যাদি নির্গত হয়। এর মধ্যে যদি আপনি ব্যাক কভার বা ফ্লিপ কভার ব্যবহার করেন তাহলে বুঝুন আপনার আর আপনার ডিভাইসটির সাথে কী হতে চলেছে । তাই জন্য যতটা সম্ভব ব্যাক কভার বা ফ্লিপ কভার কম ব্যবহার করুন।



আপনার যদি স্মার্টফোনের ব্যাপারে আরো কিছু জানার থাকে তাহলে আপনি কমেন্ট করে আমাকে জানাতে পারেন অথবা অন্য কোন কিছু জানার থাকলে আমাকে জানাতে পারেন ও আমাকে ফলো করুন ফেসবুক, টুইটার, অথবা ইনস্টাগ্রাম এ, ধন্যবাদ।

Post a Comment

Previous Post Next Post